Pages

Categories

Search

আজ- বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮

কাপাসিয়ায় জোরপূর্বক প্রতিবেশীর নির্মাণাধীন বাড়ি ভেঙ্গে রাস্তা নির্মাণ করতে মামলা

ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮
অনিয়ম, আইন- আদালত, কাপাসিয়া
No Comment

গাজীপুর দর্পণ রিপোর্ট : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় নিজের একক স্বার্থে প্রতিবেশীর নির্মাণাধীন বাড়ি ভেঙ্গে রাস্তা নির্মাণে নিষেধজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা করেছেন সাবেক এক কৃষি কর্মকর্তা। কাপাসিয়া উপজেলার চন্ডালহাতা গ্রামের মৃত গিয়াস উদ্দিনের পুত্র উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিন ১৪৪ ধারায় নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।
মামলা সুত্র ও এলাকাবাসীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্থানিয় ইউনিয়ন পরিষদ ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে কাপাসিয়া উপজেলার চন্ডালহাতা গ্রামের মো: বোরহান উদ্দিন গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে প্রতিপক্ষের জমি ও নির্মাণাধীন বাড়ির উপর ১৪৪ধারা চেয়ে পিটিশন মোকদদমা দাখিল করেছেন। গত ২৮ জানুয়ারী আদালতের বিচারক জমিতে শান্তি বজায় রাখতে কাপাসিয়া থানা পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে কাপাসিয়ার সহকারী কমিশনারকে(ভূমি) দখলীয় প্রতিবেদন দিতে বলেছেন।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, বোরহান উদ্দিন ও তার ছেলেদের অনৈতিক দাপটে অতিষ্ঠ এলাকার সাধারন মানুষ। কোনো ভাবেই জমির মালিকানা নেই, তারপরও নিজের স্বার্থে স্থানিয় ইউনিয়ন পরিষদ ও গণ্যমান্য ব্যাক্তিদের সিদ্ধান্ত ঠেকাতে আদালতে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা ঠুকে দিলেন সরকারি এই উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা। একের পর এক হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে জিম্মি করে রেখেছে বোরহান। এলাকায় মামলাবাজ হিসেবে পরিচিত বোহানের অন্যায় কাজের প্রতিবাদ করলেই মামলা দিয়ে পুলিশি হয়রানি শুরু করে। নিজের স্বার্থে অন্যের ক্ষতি করতেও দ্বিধা করেনা এই অবসর প্রাপ্ত সরকারি কর্মচারী।
সরেজমিনে গেলে এপ্রতিবেদকের উপস্থিতিতে আ: রহিম গংদের পক্ষে শতাধিক এলাকাবাসী বলেন, জমির মালিক না হয়েও বোরহান উদ্দিন মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।
সনমানিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর(মেম্বার) আলমঙ্গীর হোসেন বলেন, বোরহান উদ্দিন আদালতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে যে জমির উপর ১৪৪ ধারা চেয়েছে তা সঠিক নয়। চন্ডালহাতা মৌজার আর এস ২৩৪ নং দাগের জমি পৈত্রিকসুত্রে মালিক আব্দুর রহিম গং। অথচ বোরহান উদ্দিনের আদালতে দায়ের করা নালিশী মামলার দাগ নাম্বার আর এস ২৯৩। তিনি এই পিটিশন মোকদ্দমা হয়রানি মূলক বলে মন্তব্য করেছেন।
অভিযোগকারী উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিন নালিশী জমি দ্বিতীয় পক্ষের বলে স্বীকার করে জানান, দ্বিতীয় পক্ষের সাথে কথাছিল আমার বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার জায়গা দিবে। কিন্তু তারা কথা রাখেনি। তিনি দাবী করেন, আমার পুকুরের প্রায় তিন টন মাছ মেরে ফেলেছে, আমি কাপাসিয়া থানায় অভিযোগ দিয়েছি, পুলিশ তদন্ত করে গেছে।
সনমানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সাহাদাৎ হোসেন মালেক জানান, বোরহানের প্রতিবেশী আ: রহিমের ভিটি ৩কাঠা জমির উপর নির্মাণাধীন বাড়ি ভেঙ্গে জোরপূর্বক ব্যাক্তিগত রাস্তা নির্মাণের দাবী অযৌক্তিক।
আদালতের আদেশ পেয়ে কাপাসিয়া থানা পুলিশ ফৌ: কা: বি: ১৪৪ ধারায় নোটিশ করে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই মো: হেলাল উদ্দিন জানান, আদালতের পরবর্তী নির্দেশ পর্যন্ত উভয় পক্ষকে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলা হয়েছে।
কাপাসিয়ার সহকারী কমিশনার(ভূমি)ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্রেট মো: নাজমুস সাকিব জানান, আদালতের অর্ডার কপি পেয়ে সংশ্লিষ্ট তহশিলদার ও সার্ভেয়ারকে সরেজমিন প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। রিপোর্ট পেলে পর্যালোচনা করে আদালতকে অবগত করা হবে।