Pages

Categories

Search

আজ- মঙ্গলবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কাপাসিয়ায় গণপিটুনিতে এক ডাকাত নিহত: ফলোআপ

অগাষ্ট ৬, ২০১৫
অপমৃত্যু, কাপাসিয়া, ডাকাতি
No Comment

কাপাসিয়া  থেকে শামসুল  হুদা লিটন :
কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী ইউনিয়নের নামিলা গ্রামে গভীর রাতে শ্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি মকবুল হোসেনের বাড়ি সহ চার বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে। এসময় ডাকাত দল একটি মোটরসাইকেল, শ্বর্ণালংকার, মোবাইল সেট ও নগদ টাকাসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতি করে যাওয়ার সময় এলাকাবাসী শামীম (৪০) নামে এক ডাকাত কে ধরে গনপিটুনি দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। নিহত ডাকাত শামীম ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার টাঙ্গাব ইউনিয়নের পাচাহার (বকুলতলা) গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের পুত্র।
জানা যায়, বুধবার রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে ১৫/২০ জনের সশস্ত্র ডাকাত দল নামিলা গ্রামের পোল্ট্রি ব্যবসায়ী ও সিংহশ্রী ইউনিয়ন শ্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মকবুল হোসেন এর বাড়িতে হানা দিয়ে দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। পরে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মকবুলের মা ও তার ছোট ভাই বাদলের স্ত্রীর গলার চেইন, কানের দুল ও নগদ ৩০ হাজার টাকাসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ডাকাতেরা যাওয়ার সময় মকবুলের একটি মোটর সাইকেল লুটে নেয়।

পরে তারা পাশের জামাল উদ্দিন ও সৌদী প্রবাসী জলিল ওরফে অহুমুদ্দিনের বাড়িতে হানা দিয়ে একই কায়দায় শ্বর্ণালংকার ও নগদ ১০ হাজার টাকাসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

ডাকাতেরা মালামাল লুটে নিয়ে যাবার সময় এলাকাবাসীর ডাক-চিৎকারে গ্রামের লোকজন চারদিকে ঘেরাও করলে ডাকাতেরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এসময় গ্রামবাসী নামিলা-উলুসরা সড়কের বড় খালের ঢালে লুকিয়ে থাকা ডাকাত শামীমকে ধরে গনপিটুনি দিলে সে মারা যায়। এ সময় নিহত ডাকাতের কাছ থেকে একটি বড় দা ও গলায় ঝোলানো বিদেশী টর্চ লাইট পাওয়া যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহসান উল্লাহ জানান, নিহত ডাকাত শামীমের নামে গাজীপুর, ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা ও নরসিংদীর বিভিন্ন থানায় ডাকাতি ও হত্যা সহ ১৮টি মামলা রয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। উল্লেখ, সম্প্রতি উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ডাকাতি, চুরি ও মাদক ব্যবসা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।