Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কাঠের আলমারিতে ১ লাখ ইয়াবা

নভেম্বর ২৯, ২০১৫
চট্রগ্রাম, মাদক
No Comment

চট্রগ্রাম ইয়াবাচট্টগ্রাম নগরীর ডবলমুরিং থানার ধনিয়ালাপাড়ার এসএ পরিবহনের একটি শাখা থেকে প্রায় ১ লাখ পিস ইয়াবাসহ দুজনকে আটক করেছে র‌্যাব-৭। তারা হলেন ওই শাখার ব্যবস্থাপক এমএ মবিন (৪৪) ও পার্সেল সহকারী শামসুদ্দিন আহমদ সবুজ (২৫)। মবিনের বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনায় এবং সবুজের বাড়ি বগুড়ার শিবগঞ্জে।

শনিবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ অভিযান চালানো হয়।

র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মিফতা উদ্দিন আহমেদ বলেন, সন্ধ্যা সাতটায় আমাদের কাছে গোপন সূত্রে সংবাদ আসে এসএ পরিবহনের ওই শাখা দিয়ে ইয়াবা পাচার হচ্ছে। এরপর আমরা অভিযান পরিচালনা করি। এ সময় বিশেষ কৌশলে কাঠের আলমারির ভেতর লুকিয়ে রাখা ইয়াবাগুলো উদ্ধার করি।

তিনি জানান, এক ব্যক্তি নারায়ণগঞ্জের আনোয়ার হোসেনের নামে একটি কাঠের তৈরি আলমারি বুকিং দেন। এরপর র‌্যাব-৭ এর একটি দল এসে এসএ পরিবহনের ওই শাখার স্টোর রুমে আলমারিটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে। একপর্যায়ে বিশেষ কৌশলে আলমারির নিচের দিকের তক্তাগুলো অস্বাভাবিক মনে হলে খুলে ফেলা হয়। তখন বিশেষ কৌশলে বাড়তি তক্তা দিয়ে আলাদা ড্রয়ার তৈরি করে থরে থরে সাজিয়ে রাখা ইয়াবার প্যাকেটগুলো পাওয়া যায়।

টেকনাফ সীমান্ত আসা ইয়াবা সড়কপথেই দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার হয়ে আসছিল। একপর্যায়ে সড়ক পথে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যাপক তল্লাশি ও অভিযান শুরু করলে পাচারকারীরা সমুদ্রপথ বেছে নেয়। কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী সমুদ্রপথে কড়া নজরদারি আরোপ করলে পাচারকারীরা অভিনব সব কৌশল বের করে। একটা সময় বড় আকারের ফলমূল, আচারের প্যাকেট-বস্তাসহ রকমারি পণ্যের ভেতর করে ইয়াবা পাচারের বিষয়টি জানাজানি হলেও সর্বশেষ সংযোজন হলো আলমারির ভেতর করে ইয়াবা পাচারের কৌশল।