Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

কলাবাগানে জোড়া খুনের ঘটনায় গ্রেফতার ১

মে ১৫, ২০১৬
আইন- আদালত, শীর্ষ সংবাদ
No Comment

fileডেস্ক রিপোর্ট:
রাজধানীর কলাবাগানে মার্কিন দূতাবাসের সাবেক প্রটোকল অফিসার ও দাতা সংস্থা ইউএস এইডের কর্মকর্তা জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু থিয়েটার কর্মী মাহবুব তনয় হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেফতার শরিফুল ইসলাম ওরফে শিহাব ওই হত্যাকাণ্ডের অস্ত্র সরবরাহকারী ছিলেন বলে জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

শনিবার রাতে কুষ্টিয়ার সদর এলাকার ছয়রাস্তার মোড় থেকে শিহাবকে গ্রেফতার করে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ও ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট। গ্রেফতার শিহাবের কাছ থেকে ৪টি মোবাইল, ১টি ট্যাব ও ১টি পেনড্রাইভ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে রোববার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতারকৃত শিহাব জানায় সে জুলহাজ-তনয় হত্যাকাণ্ডের দিন ব্যবহৃত দুটি আগ্নেয়াস্ত্রের মধ্যে একটি এবং বোমা দিয়ে সহায়তা করেছিল। সে ১৯৯৮ সাল থেকে হরকাতুল জিহাদের (হুজি) সদস্য ছিল। তবে ২০১৫ সালে সে আনসারুল্লাহ বাংলাটিমে (এবিটি) যোগ দেয়। বর্তমানে সে কুষ্টিয়া অঞ্চলের এবিটির একটি ইউনিটের দায়িত্বে নিয়োজিত। নাস্তিক-ব্লগারদের পাশাপাশি কুষ্টিয়া অঞ্চলে প্রভাব বিস্তারের জন্য স্থানীয় একজন সাবেক চেয়ারম্যানকে গ্রেফতারের পরিকল্পনা করেছিল।

তিনি জানান, জিজ্ঞাসাবাদে শিহাব এই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তবে সে দাবি করেছে এই হত্যাকাণ্ডে সিসিটিভি ফুটেজে যে পাঁচজন দৌড়ে পালিয়েছিল সেখানে সে ছিল না। সে ব্যাকআপ সদস্য হিসেবে কাজ করেছে। শিহাব স্কুল-কলেজের পর মাদ্রাসায় পড়াশুনা করেছে। মাদ্রাসার পড়া শেষে সে মৌলভীবাজারে এক হুজুরের কাছে যায়। এরপর থেকেই হুজিতে যোগ দেয়।

হত্যাকাণ্ডের প্রস্তুতির বিষয়ে মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রায় দুমাস ধরে এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে আমরা ধারণা করছি। তবে সর্বনিম্ন এক মাস আগে স্লিপার সেলের কাছে জুলহাজকে হত্যার বিষয়টি জানানো হয়। আমাদের ধারণা, পহেলা বৈশাখের পরপরই তাকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ এপ্রিল কলাবাগানে ৩৫ উত্তর ধানমন্ডির বাড়ির দোতলার বাসায় ঢুকে জুলহাজ ও তার বন্ধু তনয়কে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। জুলহাজ সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির আপন খালাতো ভাই ও ‘রূপবান’ নামক একটি পত্রিকার সম্পাদক। পত্রিকাটির মূল বিষয়বস্তু লিঙ্গ সমতা প্রতিষ্ঠা। মাহবুব ছিলেন নাট্যকর্মী।