Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮

আত্রাইয়ে খালের উপর অপরিকল্পিত ভাবে নির্মিত ব্রিজ এখন মরণ ফাঁদ

অক্টোবর ৯, ২০১৭
নওগাঁ
No Comment


আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর আত্রাই উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের বামনীগ্রাম খালের উপর অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত ব্রিজটি এলাকাবসীর জন্য মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। এ ব্রিজ বর্ষা ও শুস্ক কোন মৌসুমেই কাজে আসে না। উপরন্ত এটি এখন এলকাবাসীর দুর্ভোগের প্রতিক হয়ে রয়েছে।
জানা যায়, উপজেলার বামনীগ্রাম ও গোয়ালবাড়ি গ্রামের মধ্যদিয়ে একটি বৃহত খাল প্রবাহিত হওয়ায় দু’টি গ্রামকে বিচ্ছিন্ন করে রাখে যুগযুগ থেকে। এ দু’টি গ্রামের মধ্যে সেতুবন্ধনের লক্ষ্যে প্রায় ৪/৫ বছর পূর্বে এই খালের উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে একটি ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। কিন্তু ব্রিজ নির্মাণের পর সংযোগ সড়ক নির্মাণ না করায় ব্রিজটি অকেজো হয়ে পড়ে থাকে। একই সাথে এটি রাস্তা থেকে অনেক নিচু হওয়ায় খালে পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে ব্রিজটি ডুবে যায়। ফলে ওই খাল দিয়ে নৌকা ও নৌযান চলাচল হুমুকর সম্মুখিন হয়ে পড়ে। এদিকে উপজেলার গোয়ালবাড়িসহ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তিন থেকে চার গ্রামের লোকজনকে এই খাল পাড়ি দিয়ে আত্রাই উপজেলার সাথে যোগযোগ করতে হয়। বর্ষা মৌসুমে এ যোগাযোগের ক্ষেত্রে তাদেরকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। এলাকাবসীর অভিযোগ অপরিকল্পিত এ ব্রিজ নির্মাণ আমাদের জন্য মরণ ফাঁদ হয়েছে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে ব্রিজটি ডুবে যাওয়ায় অনেক নৌকা ব্রিজের সাথে ধাক্কা লেগে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যায়।
গোয়ালবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গৌতম কুমার বলেন, এ খালের উপর একটি স্থায়ী ব্রিজ নির্মাণ না হওয়ায় বিপুল সংখ্যক ছাত্র ছাত্রীর স্কুলে আসা যাওয়া কষ্টকর হয়ে যায়। অনেক সময় নৌকার জন্য অপেক্ষা করতে গিয়ে শিক্ষার্থীরা ক্লাস পায়না।
সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হক নাদিম বলেন, এ ব্রিজটি অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। বর্তমানে এটিকে অকেজো ঘোষণা করে এখানে একটি বৃহত ব্রিজ নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে। সে অনুযায়ী কাজও অনেকটা অগ্রসর হয়েছে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় হতে তিন কোটি টাকার উপরে বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে। আগামী শুস্ক মৌসুমেই এ ব্রিজের কাজ শুরু হবে।