Pages

Categories

Search

আজ- শুক্রবার ১৬ নভেম্বর ২০১৮

“আইনের শাসন চলে গেলে আমরা বর্বর যামানায় চলে যাব” .. প্রধান বিচারপতি

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি: বিচার ব্যবস্থার উপর অধিক গুরত্ব দিয়ে বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিন্হা বলেন, দেশে যদি আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত না হয় তাহলে ভবিষ্যৎ অন্ধকার। যদি আইনের শাসন চলে যায় তাহলে আমরা সেই বর্বর যামানায় চলে যাব। সমাজ সভ্যতা টিকবে না।

তিনি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নওগাঁ সার্কিট হাউস মিলনায়তনে বিচার বিভাগীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

বিচারপতি বলেন, আপনারা কি সেই দিনে চলে যেতে চান। না বিজ্ঞানের উৎকর্ষতার সহিত তাল মিলিয়ে আমরা আইনের শাষনকে আরো আধুনিক করতে চাই। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, পুলিশ, প্রশাসন এবং প্রসিকিউশনকে একযোগে কাজ করতে হবে। বিচার বিভাগ রক্ষা, মানবাধিকার রক্ষা এবং জনগনের নিরাপত্তা বিধানের জন্য সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আইনজীবী হওয়ার কারণে আমি প্রধান বিচারপতি হতে পেরেছি। সারা দেশে শতকরা ৮০ ভাগ মামলা বাদি অথবা বিবাদি প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সরকার জড়িত। পাবলিক প্রসিকিউটর, গর্ভমেন্ট লিডার কার্যে আইনজীবী নিয়োগ করা হয়। পিপি, জিপিসহ সরকারী আইনজীবী এবং প্লীডারদের যে সন্মানী দেয়া হয় তা সন্তোষজনক নয়। এ কারণে তারা অন্যরকম ভ‚মিকা নিয়ে থাকেন। অনেক সময় পাবলিক প্রসিকিউটেরদের কক্ষে আসামী এবং আসামীদের লোকজনদের বসে থাকতে দেখা যায়। এই রকম পরিস্থিতিতে ন্যায় বিচার নিশ্চিত সম্ভব হয়না।

বিচার বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে তিনি তা সমাধানের জন্য পরার্মশ দেন। আগামী তিন মাসের মধ্যে পুরাতন মামলা নিস্পতি করার জন্য স্ব-স্ব আদালতকে নিদের্শ প্রদান করেন। মামলার ক্ষেত্রে ময়না তদন্তের রিপোর্টের বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দেওয়ার জন্য সিভিল সার্জনকে বলেন। এছাড়াও তিনি নওগাঁ ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্টের কোন নিজস্ব ভবন নেই জেনে তা অচিরেই সমাধানের আশ্বাস প্রদান করেন। এছাড়া লিখনির সমস্যা সমাধানের জন্য তিনি নিজস্ব তহবিল থেকে ২৫০টি কম্পিউটার সেট দেয়ার প্রস্তাব করেন।

জেলা জজশীপ নওগাঁর আয়োজনে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আরিফুর রহমান এর সভাপতিত্বে রেজিষ্টার জেনারেল বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট সৈয়দ আমিনুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক ড. আমিনুর রহমান, পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. ফজলে রাব্বী বকু, সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা, গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী বাকী বিল্লাহ, জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সরদার সালাউদ্দীন মিন্টু, সাধারন সম্পাদক আবু বেলাল হোসেন জুয়েল, পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল খালেদসহ প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। এসময় জেলার সকল স্তরের বিচারকগন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দুপুরে প্রধান বিচারপতি জেলা জজশীপের বিভিন্ন আদালত পরিদর্শন এবং আইনজীবিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।