Pages

Categories

Search

আজ- বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮

অবশেষে অজানা রোগে আক্রান্ত পল্লবের চিকিৎসার দায়ভার নিলো সরকার

অগাষ্ট ৭, ২০১৭
নওগাঁ
No Comment

আব্দুর রউফ রিপন, নওগাঁ প্রতিনিধি : অজানা রোগে আক্রান্ত নওগাঁর ৩ বছরের শিশু পল্লব। স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে পল্লবকে উন্নত চিকিৎসার জন্য আনা হয়েছে নওগাঁ সদর হাসপাতালে। গঠন করা হয়েছে বিশেজ্ঞ ডাক্তারদের নিয়ে ৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি। চিকিৎসকরা বলছেন পল্লবকে সার্বিক তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হবো ঢাকা পিজি হাসপাতালে। গতকাল রোববার রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার পল্লবকে দেখতে আসেন এবং তার চিকিৎসার খোজখবর নেন।

সূত্রে জানা নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার হাকিমপুর গ্রামের ৩ বছরের শিশু পল্লব। কিন্তু জন্মের পর থেকেই এ অজানা রোগ তার শরীরে বাসা বাঁধায় বেশিক্ষণ ঘরের বাহিরে থাকতে পারে না পল্লব। স্বজনরা বলছেন জন্মের পর থেকেই পল্লবের হাত-পায়ের ভাঁজে-ভাঁজে ফোসকা উঠা শুরু করে। পরবর্তীতে এ রোগ ছড়িয়ে পড়ে তার পুরো শরীরে। চিকিৎসক, কবিরাজ অনেক জায়গায় ঘুরেছেন তার পরিবার কিন্তু শনাক্ত করা যায়নি রোগটি। এনিয়ে গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর শনিবার মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে পল্লবকে নিয়ে আসা হয় নওগাঁ সদর হাসপাতালে। তাকে দেখতে আসেন রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার। ইতোমধ্যেই নওগাঁ বিশেজ্ঞ ডাক্তারদের নিয়ে ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির নিবির পরিচর্যায় রয়েছে পল্লব।

পল্লবের মা প্রার্থনা রাণী জানান, জন্মের পর থেকে পল্লবের শরীরে দেখা দেয় এই বিরল রোগটি। অনেক চেষ্টা করেও তা ভালো করতে পারেনি কেউ। পল্লবের চিকিৎসা করতে গিয়ে আজ আমার পরিবার নি:স্ব হয়ে পড়েছে। অবশেষে সরকার আমার ছেলের চিকিৎসার দায়ভার নেওয়ায় আমরা সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ।

নওগাঁর সিভিল সার্জন রওশন আরা খানম জানান, মেডিক্যাল টিমের মাধ্যমে পল্লবকে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। এই রোগের নাম “ঈড়হম ওপযঃযুড়ংরভড়ৎহ ঊৎুঃযৎড়ফবৎসব” । এই রোগের উন্নতি না হলে প্রয়োজনে তাকে আমরা ঢাকা পিজি হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করবো। এটি একটি জন্মগত রোগ। এ রোগটি নিরাময়যোগ্য না। আমরা সবাই মনে করছি শিশুটিকে কয়েকদিন হাসপাতালে রেখে দেখব। যেহেতু শিশুটির পুষ্টিরও অভাব আছে। সেহেতু তাকে ভিটামিন ও পুষ্টিকর খাবার এবং সাথে মলম দেয়া হয়েছে। এতে যদি শিশুটির কোন উন্নতি না হয় সেক্ষেত্রে উন্নত চিকিৎসার জন্য নিজ উদ্যোগে ঢাকায় পাঠাবো।

তিনি আরো বলেন, এটি স্কিনজনিত সমস্যা। ভাল করে কথা বলতে, খেতে ও হাটতে পারে। এছাড়া বিষয়টি মহাপরিচালকেও জানানো হয়েছে। যেহেতু শিশুটির দায়িত্ব আমি নিয়েছে। সবসময় তার খোঁজখবর রাখব।

রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার মো: নূর-উর-রহমান জানান পল্লবের পরিবারের এখন আর কোন ভয় নেই। সরকার তার চিকিৎসার দায়ভার গ্রহণ করেছে। এখন পল্লবকে সরকারি ভাবে উন্নত চিকিৎসা প্রদান করা হবে।